মানসিক প্রস্তুতি থাকলেও অস্ট্রেলিয়া সফর বাতিল হওয়ার খবরে হতাশ বিসিবির কর্তারাও। ক্রিকেটে ক্রমেই উন্নতির পথে হাঁটা বাংলাদেশ এখন অবধি দুবার অস্ট্রেলিয়া সফর করেছে। ২০০৩ সালে পূর্ণাঙ্গ সফর প্রথমবার। এরপর ২০০৮ সালে শেষ বার ওয়ানডে সিরিজ খেলেছিল বাংলাদেশ।

আভাস আগেই মিলেছিল। চলতি বছরের আগস্ট-সেপ্টেম্বরে দুই টেস্ট, তিন ওয়ানডের জন্য বাংলাদেশকে আতিথ্য দিবে না ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া। গত বুধবার এসেছে চূড়ান্ত ঘোষণা। ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া সাফ জানিয়ে দিয়েছে, বাংলাদেশের অস্ট্রেলিয়া সফর বাতিল করা হয়েছে। বাংলাদেশের সঙ্গে খেলা আর্থিকভাবে অলাভজনক, মৌসুমটা ক্রিকেট আয়োজনের উপযুক্ত নয়সহ অনেকগুলো কারণ উল্লেখ করেছে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া।
তবে বহুল প্রতীক্ষিত সফরটা বাতিল হয়ে যাওয়ায় হতাশা প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে বাংলাদেশ এখন সব দলের কাছেই ভালো প্রতিপক্ষ। অথচ এমন সময়েও প্রতিশ্রুত অস্ট্রেলিয়া সফর করা হচ্ছে না টাইগারদের। বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরী সুজন গতকাল বলেছেন, এ সফর বাতিল হওয়াটা দুর্ভাগ্যজনক ও দুঃখজনক। তবে সফর বাতিল করায় ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার কাছে কোনো ক্ষতিপূরণ চাইবে না বিসিবি।
সফর বাতিলের খবরে প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে বিসিবির প্রধান নির্বাহী গতকাল বলেছেন, ‘এটা দুর্ভাগ্যজনক। তারা তাদের দিক থেকে দেখছে, বাণিজ্যিকভাবে কতটা উপযোগী হবে এটা তারা হিসেব করছে, এটা অবশ্যই দুঃখজনক। বিভিন্ন সময় আমরা যেসব সিরিজ করি সব সিরিজই যে লাভজনক হয় তেমন না। অনেক দেশকে হোস্ট করতে হয়। আন্তর্জাতিক কমিটমেন্ট রক্ষা করতে গিয়ে অনেক দেশকে হোস্ট করতে হয়েছে। অর্থনৈতিকভাবে খুব একটা লাভজনক থাকি না। তো বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড যদি এটা এফোর্ট করতে পারে আমরা আশা করব যে বড় বড় ক্রিকেট বোর্ডও এটা করবে।’
সফর বাতিল করলেও ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে সম্পর্ক নষ্ট করতে চায় না বিসিবি। এফটিপির প্রতিশ্রুতি ভঙ্গ করলেও আইনি কোনো পদক্ষেপ নিবে না বিসিবি। একই ভাবে কোনো ক্ষতিপূরণও চাওয়া হবে না।
বিসিবির প্রধান নির্বাহী বলেছেন, আমরা চাই খেলতে। আমাদের ছেলেরা বিভিন্ন দেশে, কন্ডিশনে গিয়ে খেলবে, অভিজ্ঞতা অর্জন করবে, উন্নতি করবে। আমাদের ক্ষতিপূরণ দরকার নেই। আমাদের প্রয়োজন খেলার সুযোগ।
তা ছাড়াও সফর বাতিল করায় আইনি দিক থেকে বেশি কিছু করার সুযোগ নেই বলে জানিয়েছেন নিজামউদ্দিন চৌধুরী সুজন। বরং ভবিষ্যতে সুবিধাজনক সময়ে সফরের সুযোগ তৈরির দিকেই মনোযোগ দিতে চায় বিসিবি।
বাংলাদেশের সঙ্গে খেলা নিয়ে অস্ট্রেলিয়ার টালবাহানা নতুন নয়। বাংলাদেশ সফর ও বাংলাদেশকে আমন্ত্রণ জানাতে সবসময় অনীহা জানিয়ে এসেছে দেশটি। ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে বিসিবির ক্রিকেট কূটনীতিতে দুর্বলতা রয়েছে মানতে নারাজ নিজামউদ্দিন চৌধুরী সুজন।
মিরপুর স্টেডিয়ামে গতকাল এ প্রসঙ্গে তিনি বলেছেন, ‘ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া নানা সময়ে আমাদের সহযোগিতা করেছে। আমরা টেস্ট মর্যাদা পাওয়ার পরে আমাদের সঙ্গে ওদের দ্বিপাক্ষিক প্রতিশ্রুতি ছিল। আম্পায়ার এডুকেশন, প্লেয়ার এডুকেশন এইগুলোতে তারা আমাদের সহযোগিতা করেছে। তারা এবারো বলেছে, আমাদের সঙ্গে সম্পর্ক যেটা আছে সেটা থাকবে, আগামীতে তা আরও উন্নত হবে।’
বাড়তি খরচের চিন্তাতেই সিরিজ বাতিল করেছে অস্ট্রেলিয়া। ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে আলাপের বিষয়ে বিসিবির প্রধান নির্বাহী বলেছেন, ‘আমাদের ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া জানিয়েছে যে সময় নির্ধারিত ছিল এই সিরিজের জন্য সে সময় তাদের বেশ কিছু জায়গায় ক্রিকেট খেলা সম্ভব না। যেসব জায়গায় সম্ভব সেখানে খুব খরুচে হয়ে যায়।’
                                                                                                     (দুরন্ত নিউজ রিপোর্টার)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here