মুলা খেলে কি হয়?

মুলা খেলে কি হয়?

0
50

মুলায় রয়েছে প্রচুর মাত্রায় ম্যাগনেসিয়াম, জিঙ্ক, কপার, ফলেট, ক্যালসিয়াম, পটাশিয়াম এবং ভিটামিন এ। এই সবকটি উপাদান শরীরের প্রতিটি অঙ্গকে রোগমুক্ত রাখার পাশাপাশি সার্বিকভাবে সুস্থ জীবনের পথকে প্রশস্ত করতে বিশেষ ভূমিকা রাখে। তরকারি হিসেবে এই সবজিটি খাওয়া যেতেই পারে। এতে উপকার পাওয়া যায় ঠিকই, কিন্তু সবথেকে ভালো উপকার পেতে চাইলে মুলার রস খেতে হবে। আর এমনটা করলে কী হতে পারে জানেন?

মুলার রসের গুণাগুণ সম্পর্কে জানিয়েছে জীবনধারা বিষয়ক সাময়িকী বোল্ডস্কাই। আসুন জেনেনি মুলার রস খেলে কী হয়-

পাইলসের মতো রোগের প্রকোপ কমায় : এই সবজিটির অন্দরে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে কার্বোহাইড্রেট এবং ফাইবার। এটা দেহের অন্দরে প্রবেশ করার পর এমন খেল দেখায় যে পাইলসের মতো রোগের কষ্ট কমতে সময় লাগে না। তাই তো বলি বন্ধু আপনিও যদি এমন কষ্টকর রোগের শিকার হয়ে থাকেন, তাহলে রোজের ডায়েটে মুলাকে অন্তর্ভুক্ত করতে ভুলবেন না যেন!
এনজাইমের ঘাটতি দূর করে : মূলার রসে মাইরোসিনেসি, এস্টারএসেস, অ্যামাইলেস এবং ডিয়াস্টেস নামে এনজাইমগুলি প্রচুর মাত্রায় থাকে, যা ফাঙ্গাল ইনফেকশেনর হাত থেকে রক্ষা করে থাকে।
নানাবিধ ত্বকের রোগকে দূরে রাখে : এই সবজিতে থাকা ফসফরাস, জিঙ্ক, ভিটামিন এ এবং ভিটামিন সি ব্রণ, একজিমা, ফুসকুড়ি সহ একাধিক ত্বকের রোগের উপশমে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে।
কোষ্ঠ্যকাঠিন্যের প্রকোপ কমায় : আপনি কি কোষ্ঠ্যকাঠিন্যের সমস্যায় ভুগছেন? তাহলে তো মুলার রস আপনার রোজের সঙ্গী হওয়া উচিত। আসলে এতে উপস্থিত বেশ কিছু কার্যকরি উপাদান হজম ক্ষমতার উন্নতি ঘটানোর পাশাপাশি বাইলের প্রবাহ যাতে ঠিক মতো হয় সেদিকেও খেয়াল রাখে। ফলে স্বাভাবিকভাবেই কোষ্ঠ্যকাঠিন্যের প্রকোপ কমতে শুরু করে।

অ্যাস্থেমার প্রকোপকে নিয়ন্ত্রণে রাখে : 

শ্বাস কষ্ট, সেই সঙ্গে হাঁচি-কাশিতে একেবারে জর্জরিত হয়ে পরেছেন? তবে চিন্তা করবেন না, আজ থেকেই মুলার রস খাওয়া শুরু করুন। দেখবেন কষ্ট কমে যাবে। আসলে মুলার রস, লাঞ্জে-এ জমতে থাকা মিউকাসের দেওয়ালকে ভেঙে দেয়। ফলে অল্প দিনেই অ্যাস্থেমার প্রকোপ কমতে শুরু করে। এখানেই শেষ নয়, বমি ভাব, গলার ব্যথা এবং মাথা ঘোরার মতো সমস্যা কমাতেও এই প্রকৃতিক উপাদানটি সাহায্য করে।
(দুরন্ত নিউজ রিপোর্টার)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here