হোমিওপ্যাথিক বিশ্ববিদ্যালয়ের নামে প্রতারণার বিচারের দাবি

0
67

ঢাকা: অবৈধ ‘হোমিওপ্যাথিক বিশ্ববিদ্যালয়’ আড়ালে কোটি টাকা আত্মসাৎ, প্রতারণা ও বিভিন্ন অপকর্মে জড়িতদের গ্রেফতার দাবিতে মানববন্ধন করেছে স্বাধীনতা হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা পরিষদ।

রোববার (২৭ সেপ্টেম্বর) সকালে রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এ মানববন্ধন করা হয়।

এতে সভাপতিত্ব করেন পরিষদের ঢাকা জেলার সভাপতি ডা. জামাল হোসেন।

মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন হোমিওপ্যাথিক মেডিক্যাল কলেজ শিক্ষক সমিতির সভাপতি ডা. মো. কামরুজ্জামান ভূঁইয়া, সাধারণ সম্পাদক ডা. আশিষ শংকর নিয়োগী, স্বাধীনতা হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসক পরিষদের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি ডা. শেখ মো. ইফতেখার উদ্দিন, ডা. মো. কায়েম উদ্দিন, সংগঠনের ঢাকা মহানগরের সভাপতি ডা. অপূর্ব কুমার দাস, বাংলাদেশ হোমিওপ্যাথিক মেডিক্যাল কলেজের সাধারণ সম্পাদক মো. আবু তাহের প্রমুখ।

মানববন্ধনে বক্তারা অভিযোগ করেন, ফ্রিডম পার্টির সাবেক নেতা ডা. শাখাওয়াত ইসলাম ভূঁইয়া খোকন বিভিন্ন সময় বিভিন্ন দলের নাম ভাঙ্গিয়ে অবৈধভাবে কোটি কোটি টাকার মালিক হয়েছেন। এখন আবার আওয়ামী লীগের নাম ভাঙ্গিয়ে স্বার্থ হাসিলের অপচেষ্টা করছেন। অথচ কিছুদিন আগেও তার নেতৃত্বে ডিএইচএমএস ডক্টরস ফাউন্ডেশন বিএনপির ব্যানারে পল্টনে চিকিৎসা সামগ্রী বিতরণ করে।

মানববন্ধনে বক্তারা আরও বলেন, ডা. খোকন তার বহু অপকর্মের সঙ্গীদের নিয়ে ‘বঙ্গবন্ধু হোমিওপ্যাথিক বিশ্ববিদ্যালয়ে’র আড়ালে মনগড়া পদ সৃষ্টি করে চাকরি দেওয়ার নামে ১২৮ জনের কাছ থেকে জনপ্রতি ১০ থেকে ২০ লাখ টাকা করে হাতিয়ে নিয়েছেন। বিদেশে পাঠানোর নামে প্রায় ২৫ জনের কাছ থেকে কয়েক কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন। আওয়ামী লীগের কোনো সংগঠনের সঙ্গে তিনি জড়িত নন, অথচ তিনি নিজেকে দলীয় নেতা পরিচয় দেন। এছাড়া বঙ্গবন্ধুর নামে সাইন বোর্ড টাঙিছে। অথচ বঙ্গবন্ধু ট্রাস্ট থেকে কোনো অনুমতি নেননি তিনি।

কর্মসূচি থেকে অপরাধমূলক এসব কর্মকাণ্ডের প্রধান হোতা ডা. শাখাওয়াত ইসলাম ভূঁইয়া খোকন ও তার সহযোগীদের গ্রেফতার করে তাদের কৃতকর্মের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করা হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here